গুগল সার্চ কনসোল কি এবং কিভাবে ব্যবহার করবেন

গুগল সার্চ কনসোল কি? কিভাবে ব্যবহার করবেন?

গুগল সার্চ কনসোল Google কোম্পানিরই একটি সেবা। যারা ব্লগিং করেন অথবা যে কোন ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করেন, কাঙ্খিত সেই ওয়েবসাইটের এসইও (SEO) বিষয়টি মেইনটেইন করার জন্য Google Search Console ব্যবহার করতে হয়।

যারা এসইও নিয়ে ঘাটাঘাটি করেন, তারা অবশ্যই Google Webmaster Tools এর নাম শুনে থাকবেন।

গুগল ওয়েবমাস্টার টুলসকেই সাধারণত Google Search Console বলা হয়।

যে কোন পেশাদার মার্কেটার, এসইও এক্সপার্ট বা অ্যাপস ডেভেলপারকে সার্চ কনসোল সম্পর্কে পুরোপুরি জানা অত্যন্ত জরুরি বিষয়।

আপনি যদি ওয়েবমাস্টার হন বা ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ শুরু করার চিন্তা করেন, তবে আপনার জন্য আইটি নির্মাণ এর এই আর্টিকেলটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

চলুন জেনে নিই Google Webmaster Tools এর আদ্যোপান্ত।

গুগল সার্চ কনসোল কি?

গুগল কনসোল হলো Google এর একটি ফ্রি পরিসেবা যা ওয়েবসাইট এর সার্চ পারফর্মেন্স বৃদ্ধি করে এবং Website সংক্রান্ত বিভিন্ন ডেটা সংরক্ষণ করে।

গুগল সার্চ ইঞ্জিনে যত ওয়েবসাইট ইনডেক্স রয়েছে এবং যত ওয়েবসাইট নতুন করে গুগল সার্চ ইঞ্জিনে সাবমিট করা হচ্ছে, সেই সমস্ত  ওয়েবসাইট গুলোর Input এবং Output Data মনিটরিং করার সিস্টেমকে গুগল সার্চ কনসোল বলে।

আপনি যদি একজন ওয়েবমাস্টার হন এবং আপনার ওয়েবসাইটটি যদি Google Search Console এর মাধ্যমে যুক্ত করা থাকে, তবে আপনার Website performance এর বিভিন্ন ডেটা দেখতে পাবেন।

গুগল সার্চ কনসোল২০৫ সালের আগে Google Search Console এর নাম ছিল Google Web Toolkit (GWT).

পরবর্তীতে “গুগল ওয়েব টুলকিট” নামটি পরিবর্তন করে Google Search Console রাখা হয়।

Tools টি যেহেতু ওয়েবমাস্টারদের কাজে লাগে, সেহেতু এটিকে আবার Google Webmaster Tools বলেও ডাকা হয়।

Google Search Console এর কাজ কি?

একজন ওয়েবমাস্টারের জন্য Google সার্চ কনসোল ব্যবহার করা অত্যন্ত জরুরি।

গুগল সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ওয়েবসাইট কেমন পারফর্ম করছে, ওয়েবসাইটের কোন আর্টিকেলে কতজন ভিজিটর প্রবেশ করছে, বাউন্স রেট কত, ওয়েবসাইটে কোন প্রবলেম আছে কিনা, তার সমস্ত Data আপনি গুগল সার্চ কনসোল থেকে দেখতে পাবেন।

সার্চ কনসোল ব্যবহার কারার মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন, আপনার ওয়েবসাইট উন্নতি করার জন্য কি কি করতে হবে।

Google Search Console এর খুবই চমৎকার একটি ফিচার হলো, আপনার ওয়েবসাইটটি কোন কোন কিওয়ার্ড এর ভিত্তিকে রেংক করেছে এবং সার্চ রেজাল্টে আপনার সাইট কত নাম্বার পজিশনে আছে, তা দেখতে পারবেন।

পড়ার সাজেশনঃ
SEO /এসইও কি? সার্চ ইঞ্জিনের ভাষায় এসইও কত প্রকার?
ব্লগ লেখার নিয়ম এবং কৌশল

আরেকটি বিষয় হলো ভিজিটর ফিল্টরিং করা। অর্থাৎ, আপনার সাইটে গত ২৮ দিনে কতজন ভিজিটর প্রবেম করেছিল এবং কতগুলো পেজ ভিউ করেছিল তা দেখতে পাবেন।

মনে করেন, আমাদের আইটি নির্মাণ ওয়েবসাইটে গতমাসে ৫ লক্ষ ভিজিটর প্রবেশ করেছিল।

তারমধ্যে সার্চ ইঞ্জিন থেকে ৪ লক্ষ ৫০ হাজার ভিজিটর এসেছে। আর বাকি ৫০ হাজার সোশ্যাল মিডিয়া বা অন্যান্য সাইট থেকে ব্যাকলিংকের মাধ্যমে এসেছে।

এই ৫ লক্ষ ভিজিটর ২২ লক্ষ পেজ ভিউ করেছে, তাদের এভারেজ রাউন্স রেট ছিল ৪% এবং সময়কাল বা Duration ২.৫৫ মিনিট।

আমি যে এই Data টি আপনাদের কাছে বললাম, আপনার সাইটের এই Data গুলো পাবেন কোথায়?

হ্যাঁ, এই Data গুলো পাওয়ার জন্যেই আপনাকে গুগল সার্চ কনসোল ব্যবহার করতে হবে।

গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস কেন ব্যবহার করবেন?

ইতোমধ্যেই বলেছি Google Search Console কেই Google Webmaster Tools বলা হয়। তাই নাম পরিবর্তন করে বলায় কেউ বিভ্রান্ত হবেন না।

আপনার ওয়েবসাইটকে যদি সহজেই গুগল সার্চ ইঞ্জিনে রেংক করাতে চান এবং ওয়েবসাইটে পর্যাপ্ত ভিজিটর নিয়ে আসতে চান তবে গুগল ওয়েবমাস্টার Tools আপনাকে অনেক সহযোগিতা করবে।

সারা বিশ্বে বড় বড় যত SEO এক্সপার্ট আছেন, তারা তাদের ওয়েবসাইটকে এসইও করতে গিয়ে শুরুতেই গুগল কনসোলকে টার্গেট করে।

কারণ Search Console হলো গুগল সার্চ ইঞ্জিনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি টুলস।

যেটাকে আমি Search engines এর প্রবেশ পথ বলি।

আপনার ওয়েবসাইটের পারফর্মেন্স বৃদ্ধিকরণে যদি সার্চ কনসোলকে যথাযথা ভাবে ব্যবহার করতে পারেন, তবে অল্প দিনেই যে কোন ওয়েবসাইট নিয়ে এগিয়ে যেতে পারবেন।

গুগল সার্চ কনসোল সম্পর্কে Google এর নিজস্ব মতামতঃ

গুগল সার্চ কনসোলSearch Console এমনই একটি চমৎকার টুলস, যেটার মাধ্যমে আপনি দেখতে পারবেন আপনার ওয়েবসাইটের অগ্রগতি হচ্ছে নাকি অবনতি হচ্ছে।

তাছাড়া, আপনার ওয়েবসাইটের যদি কোন টেকনিক্যাল সমস্যা হয় তা কিভাবে সমাধান করবেন তার সাজেশন গুগল কনসোল থেকে দেওয়া হবে।

এটা প্রায় সকল ওয়েবমাস্টরদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

মজার বিষয় হলো Google Search Console আপনাকে যে Data গুলো ফ্রিতেই প্রদান করছে, তা অন্য কোন টুলস এর প্রিমিয়াম বা পেইড ভার্সনেও পাবেন না।

কেননা, Google search engine তাদের নিজস্ব পরিসেবা। আর গুগল কনসোলও তাদের।

সুতরাং, আপনার ওয়েবসাইট সম্পর্কে যে পরিমাণ Data গুগল সংরক্ষণ করতে পারে, তা অন্য কোন Tools এর পক্ষে সম্ভব না।

Google Search Console কিভাবে ব্যবহার করবেন?

আপনার ওয়েবসাইটকে গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস এর মাধ্যমে যুক্ত করার জন্য গুগলে “Google Webmaster Tools”  লিখে সার্চ করুন। অথবা এই লিংকে ক্লিক করুনঃ Google Search Console.

গুগল সার্চ কনসোল টুলসে প্রবেশ করার পর আপনাকে বেশ কিছু স্টেপ ফলো করতে হবে।

নিচে স্টেপ বাই স্টেপ টিউটোরিয়াল আকারে দেওয়া হলো।

স্পেট ১

প্রথমেই Google Webmaster Tools এ প্রবেশ করুন।

প্রবেশ করার পর Start now তে ক্লিক করুন।

স্টেপ ২

তারপর আপনাকে এমন একটি পেজে নিয়ে আসবে।

গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস
গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস

এই পেজে আসার পর আপনার ওয়েবসাইটের URL টি দিয়ে ওয়েবসাইটকে ভেরিফাই করতে হবে।

এখানে দুইটা অপশন দেখতে পাবেন।

  • Domain
  • URL prefix

আপনি এখান থেকে URL prefix বক্সে আপনার ওয়েবসাইটের সম্পূর্ণ লিংকটি দিন।

তারপর Continue বাটনে ক্লিক করুন।

স্টেপ ৩

তারপর এমন একটি পেজে আপনাকে নিয়ে যাবে।

গুগল সার্চ কনসোল কি
গুগল সার্চ কনসোল কি

এই পেজে আসার পর আপনাকে ওয়েবসাইটের Ownership Verify করতে হবে।

অর্থাৎ, ওয়েবসাইটটি যে আপনার তা প্রমাণ করতে হবে।

বিভিন্ন ভাবে ওয়েবসাইটের Ownership Verify করা যায়।

তারমধ্যে দুটি সহজ পদ্ধতি বলে দিচ্ছি।

() HTML ফাইলটি ডাউনলোড করে সিপ্যানেল গিয়ে আপনার কাঙ্খিত ওয়েবসাইটের Directory তে আপলোড করে দিন।

(২) Html tag এ ক্লিক করুন, তবে একটি কোড ওপেন হবে। সেই কোডটি সম্পূর্ণ কপি করুন এবং আপনার ওয়েবসাইটের থিম এর <head> </head> ট্যাগ এর মাঝখানে সেই কোডটি বসিয়ে দিন।

তাপপর গুগল সার্চ কনসোল থেকে Verify বাটনে ক্লিক করুন।

সবকিছু ঠিক থাকলে আপনার ওয়েবসাইটের Ownership Verify হয়ে যাবে এবং Google Search Console এর ডেশবোর্ডে নিয়ে যাবে।

আর যদি কোডটি যথাযথ স্থানে বসাতে না পারেন, তবে Error দেখাবে এবং Error টি সমাধান করার জন্য কোডটি যথাযথ স্থানে বসিয়ে Verify এ ক্লিক করলেই Ownership Verify হয়ে ডেশবোর্ডে চলে আসবেন।

গুগল সার্চ কনসোল
গুগল ওয়েবমাস্টার টুলস এর ডেশবোর্ড

Search Console এর ডেশবোর্ড দেখতে এমন।

তবে আপনার এখানে কোনো Data দেখাবে না, পুরোপরি ফাঁকা দেখাবে।

নতুন ওয়েবসাইট কনসোলে যুক্ত করার ৪৮ ঘন্টা পর থেকে Data দেখানো শুরু করবে।

যেই স্ক্রিনশর্ট গুলো আমি দিয়েছি, সেগুলো আমাদের একটি নতুন ওয়েবসাইটের Data.

আপনার ওয়েবসাইটের ক্ষেত্রেও ঠিক একই ভাবে Data দেখানা হবে।

গুগল সার্চ কনসোলে XML Sitemap যুক্ত করা

যে কোন ওয়েবসাইটকে সহজেই রেংক করানোর জন্য XML সাইটম্যাপ অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

XML সাইটম্যাপ মূলত আপনার ওয়েবসাইটের একটি ম্যাপ, যেটা ওয়েবসাইটের সমস্ত Data গুগল কনসোলের কাছে তুলে ধরে।

আপনার ওয়েবসাইট WordPress, blogspot বা যে কোন প্লাটফর্ম থেকেই তৈরি করেননা কেন, সব ধরণের ওয়েবসাইটের একটি নির্দিষ্ট XML Sitemap রয়েছে।

তবে শুরুতেই আপনার ওয়েবসাইটে XML Sitemap না পেতে পারেন।

WordPress দিয়ে আপনার ওয়েবসাইটটি তৈরি করলে বিভিন্ন এসইও প্লাগইনের সাহায্যে XML সাইটম্যাপ তৈরি করে নিতে পারেন।

আর যদি blogspot বা অন্যান্য প্লাটফর্ম থেকে সাইট তৈরি করেন, তবুও বিভিন্ন পদ্ধতিতে আপনার ওয়েবসাইটের XML Sitemap তৈরি করে নিতে পারেন।

XML Sitemap তৈরি করার পর গুগল সার্চ কনসোল এর মাধ্যমে সেই XML Sitemap টি সাবমিট করতে হবে।

ওয়েবসাইট XML সাইটম্যাপ
ওয়েবসাইট XML সাইটম্যাপ

XML সাইটম্যাপটি তৈরি করার পর গুগল কনসোলে সাবমিট করার জন্য Google Search Console এর ডেশবোর্ডে যান, এবং বামপাশে Sitemaps নামের মেনুতে ক্লিক করেন।

তারপর আপনার ওয়েবসাইটের ডোমেইন নামটি দেখাবে।

সেখানে আপনার ডোমেইনটি ছাড়া শুধু sitemap_index.xml অংশটা বসিয়ে দিন এবং SUBMIT বাটনে ক্লিক করুন।

এক্ষেত্রে একটি বিষয় বলে রাখার প্রয়োজনবোধ করছি। সেটা হলো, Sitemap তৈরির জন্য আমার যেই সমস্ত টুলস বা প্লাগইন ব্যবহার করি, সব টুলস বা প্লাগইন দিয়ে তৈরি সাইটম্যাপ এর লিংকটা এক নাও হতে পারে।

উদাহরণস্বরূপঃ অনেক টুলস বা প্লাগইন দিয়ে তৈরি সাইটম্যাপ গুলো এমন হয় sitemap.xml.

আবার অনেক টুলস বা প্লাগইন দিয়ে তৈরি সাইটম্যাপ গুলো এমন হয় sitemap_index.xml.

এটা কোন প্রকার সমস্যা না। আপনার সাইটম্যাট এর লিংকটি যেমনই হোকনা কেন, পরিবর্তন না করে তাই গুগল সার্চ কনসোলে সাবমিট করুন।

শেষ কথাঃ

গুগল ওয়েবমাস্টার টুলসটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ Data প্রদান করে।

যা প্রত্যেক এসইও মার্কেটার বা ওয়েবসাইট Owner দের জন্য ব্যবহার করা উচিত।

Google Search Console ব্যবহার করার মানে হলো আপনার ওয়েবসাইটের সকল Data কে একটি মনিটরিং সিস্টেমে নিয়ে আসা।

সেটা আপনার ওয়েবসাইটের প্রচার-প্রসার ও সমৃদ্ধকরণে বেশ সহযোগি টুলস হিসেবে কাজ করবে।

প্রিয় পাঠক, আশা করছি গুগল সার্চ কনসোল কি এবং কিভাবে কাজ করে তার উপর আপনি একটি পূর্ণাঙ্গ ধারণা পেয়ে গেছেন।

এই বিষয়ে যদি আপনার আরো কোন প্রশ্ন থাকে তবে অবশ্যই কমেন্ট করুন। আমরা উত্তর দিয়ে সহযোগিতা করবো ইনশাআল্লাহ।

আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে উপকারী মনে হয়, তবে আপনার বন্ধুদের সাথেও শেয়ার করতে পারেন। ধন্যবাদ সবাইকেই।

NAZIRUL ISLAM NAKIB

যত জ্ঞান-ধন করেছি অর্জন জীবনের প্রয়োজনে,
তার সবটুকুই বিলাতে চাই সৃষ্টির কল্যাণে।

Add comment

error: Content is protected !!