দরখাস্ত লেখার নিয়ম ২০২১ | আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

দরখাস্ত লেখার নিয়ম ২০২১ | আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

মানুষ সামাজিক জীব। আমাদের দৈনন্দন জীবনে একে অপরের সাহায্য নিয়েই সমাজে চলতে হয়। শিক্ষা ক্ষেত্র থেকে শুরু করে চাকরি ক্ষেত্রেও আমাদেরকে অপরের সাহায্য নিতে হয়। একথা বলা বাহুল্য সবকিছুরই একটি নির্দিষ্ট নিয়ম রয়েছে। কারো থেকে সাহায্য নিতে হলেও একটি নিয়ম ফলো করতে হয়। আজকে আমরা জানবো, বাংলা দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম সম্পর্কে।

এই আর্টিকেলটিতে ভিন্ন ভিন্ন বেশকিছু বাংলা দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম তুলে ধরা হলো। আপনি যদি আর্টিকেলটি ফলো করেন, তবে আশা করা যায় যে কোন দরখাস্ত বা আবেদন পত্র আপনি নিজেই লিখতে পারবেন।

আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লেখার নিয়মাবলী

নিয়মের ভিত্তিতে আবেদন পত্র বা দরখাস্ত লেখার জন্য সাধারণত ৭ টি বিষয় ফলো করতে হয়। যেমনঃ

  1. শুরুতেই তারিখ লিখতে হবে।
  2. প্রাপক বারবর বিষয়টি উল্লেখ করতে হবে।
  3. প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করতে হবে।
  4. আবেদন পত্র বা দরখাস্তের বিষয় উল্লেখ করতে হবে।
  5. কাঙ্খিত বিষয় সম্পর্কে সুস্পষ্ট ভাবে লিখতে হবে।
  6. বিয়য়টিকে মঞ্জুর বা গ্রহণ করার জন্য প্রাপককে অনুরোধ করতে হবে।
  7. আপনার পরিচয়পত্র গুছালো ভাবে লিখতে হবে।

উপরোল্লেখিত এই ৭ টি বিষয় ফলো করার মাধ্যমে দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লিখতে পারবেন। নিচে কিছু নমুনা উল্লেখ করা হলো।

চাকরির দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখঃ ৩/০৬/২০২ ইং
জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার,
প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, কিশোরগঞ্জ, বাংলাদেশ।

বিষয়ঃ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এর শূন্য পদে নিয়োগ লাভের আবেদন।

জনাব, আপনার নিকট সবিনয় নিবেদন এই যে, গত ৯ আগষ্ট, ২০২ দৈনি বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার মারফতে জানতে পারলাম যে, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন কিশোরগঞ্জ জেলা ভিত্তিক বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকের শূন্যপদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। আমি উক্ত পদের জন্য একজন প্রার্থী। প্রার্থিতার সপক্ষে এবং আপনার সহানুভূতিশীল বিবেচনার জন্য আমার যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার বিবরণ নিচে পেশ করছি:

প্রার্থীর নাম                :  মো. আবু তাহের আকন্দ
পিতা/স্বামীর নাম      :  মো. তাজুল ইসলাম
মাতার নাম               :  মোছা. নুসরাত জাহান
স্থায়ী ঠিকানা            : গৌরাঙ্গ বাজার, কিশোরগঞ্জ
বর্তমান ঠিকানা        : মহাখালী, ঢাকা
জন্ম তারিখ              : ০৪,০৮,৯৯৮ ইং
জাতীয়তা                 : বাংলাদেশী
ধর্ম                           : ইসলাম
শিক্ষাগত যোগ্যতা  :

ক্রমিক নং পরীক্ষা নাম জিপিএ/বিভাগ পাসের বছর বোর্ড
দাখিল ৪.৬০ ২০ মাদ্রাসা বোর্ড
এইচএসসি ৪.৮৯ ২০ ঢাকা বোর্ড
অনার্স দ্বিতীয় ২০ ঢাকা বোর্ড

অতএব, উল্লেখিত তথ্যাদির আলোকে আমাকে আপনার অধীনে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ লাভের সুযোগ দানে আপনার সুমর্জি কামনা করি।

নিবেদক-
মো. আবু তাহের আকন্দ

সংযুক্তি :
(ক) আপনার সকল সার্টিফিক -এর মূল সত্যায়িত কপি দিতে হবে।
(খ) পাসপোর্ট সাইজের ৩ কপি সত্যায়িত ছবি দিতে হবে।
(গ) চারিত্রিক সনদপত্রের কপি দিতে হবে।

ছুটির দরখাস্ত লেখার নিয়ম

তারিখঃ ২৪/০৮/২০২ ইং
বরাবর,
প্রধান শিক্ষক
ছোবহানিয়া আদর্শ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, মিরপুর, ঢাকা

বিষয়ঃ ছুটি কাটানোর জন্য আবেদন।
জনাব,
সালাম পূর্বক বিনীত নিবেদন এই যে, আমি আপনার বিদ্যালয়ে ২০২ সালের একাদশ শ্রেণীর একজন নিয়মিত ছাত্র। আমার মায়ের অসুস্থতার কারণে আমি বাড়িতে যেতে চাই। উল্লেখ্য যে, আমার বাবা পৃথিবীতে বেঁচে নেই। আমাদের পরিবারের একমাত্র অবিভাবক হিসেবে আমার মা কাজ করছেন। ভাই-বোনদের মাঝে আমি সবার বড়। আমার মায়ের চিকিৎসার ব্যবস্থাপনায় আমাকে বাড়িতে যেতে হবে।

অতএব, মহোদয় সমীপে বিনীত নিবেদন, আপনি আপনার মানবিক দৃষ্টি দিয়ে আমাকে আপনার বিদ্যালয় থেকে  ‍ছুটির অনুমতি দানে আপনার সদয় মর্জি কামনা করছি।

বিনীত-
আপনার একান্ত অনুগত
সাব্বির আহম্মেদ (শিহাব)
শ্রেণীঃ একাদশ
রোল- ৪৯

ছুটির আবেদন পত্র লেখার নিয়ম

তারিখঃ ২২/০৮/২০২ ইং
মাননীয়,
অধ্যক্ষ সমীপেষু
দারুল হুদা আদর্শ দাখিল মাদ্রাসা, করিমগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ।

বিষয়ঃ ৫ দিনের ছুুটির জন্য আবেদন।
জনাব,
যথাবিহিত সম্মান প্রদর্শনপূর্বক নিবেদন, আগামী সোমবার আমার বড় ভাইয়ের শুভ বিবাহ অনুষ্ঠান সুসম্পন্ন হবে। উক্ত অনুষ্ঠানের কাজে আমাকে পাঁচদিন বাড়িতে অবস্থান করতে হবে। তাই উক্ত পাঁচদিন আমার পক্ষে মাদ্রাসায় উপস্থিত থাকা সম্ভব হবে না।

অতএব, মহোদয় সমীপে একান্ত আরজ, আমাকে উল্লিখিত পাঁচদিনের ছুটি মঞ্জুর করে আপনার চির কৃতঞ্জতাপাশে আবদ্ধ করবেন।

নিবেদক,
আপনার একান্ত অনুগত ছাত্র
নাজমুল হাসান ফারাবি
শ্রেণীঃ ফাজিল (ম. বর্ষ)
রোল- ৪৬৩

আমাদের কথাঃ

আমাদের দৈনন্দন জীবনে প্রায় সময়ই কারো নিকট দরখাস্ত বা আবেদন পত্র লেখার প্রয়োজন হয়। এক্ষেত্রে দেখা যায় যে, আমাদের অনেকই দরখাস্ত বা আবেদন পত্র কিভাবে লিখতে হয় এই বিষয়টা বুঝে না। তাই এই ছোট্ট বিষয়টাও অন্য কারোর সহযোগিতা নিয়ে করতে হয়।

আমি আশাকরি আজকের পর থেকে আপনাকে আর কারো সহযোগিতা নিয়ে দরখাস্ত বা আবেদনপত্র লিখাতে হবে না। আপনি যদি আমাদের এই আর্টিকেলটি ”দরখাস্ত লেখার নিয়ম বা আবেদন পত্র লেখার নিয়ম” ভালোভাবে ফলো করে থাকেন, তবে এখন থেকে আপনি নিজেই যে কোন ধরণের বাংলা দরখাস্ত বা আবেদন পত্র নিজেই লিখতে পারবেন। 

বরাবরের মতো আইটি নির্মাণ -এর আজকের আর্টিকেলটি কেমন লাগলো তা জানাতে ভুলবেন না! এই বিষয়ে যদি আপনার আরো কোন প্রশ্ন বা মতামত থাকে তবে এখনই কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

Add comment