বাংলা সমার্থক শব্দ

বাংলা সমার্থক শব্দ বা প্রতিশব্দ | ’আ’ ’ই’ ’ঈ’ বর্ণ দিয়ে ২৪০+ শব্দ

বাংলা সমার্থক শব্দ বা প্রতিশব্দের নতুন আরেকটি পর্বে আপনাকে স্বাগতম! গত পর্বে আমি আলোচনা করেছি বাংলা স্বরবর্ণের প্রথম ’অ’ বর্ণটি নিয়ে। ’অ’ বর্ণের পর্বটি সাজানো হয়েছে ৪০০ টিরও বেশী বাংলা সমার্থক শব্দ দিয়ে। এই পর্বে আলোচনা করা হবে ’আ’ ’ই’ ’ঈ’ বর্ণ নিয়ে। 

আল্লাহ : খোদা, বিধাতা, স্রষ্টা, সৃষ্টিকর্তা, ইলাহ, প্রভু, পরমাত্মা।

আদেশ : নির্দেশ, হুকুম, ফরমায়েশ, বিজ্ঞপ্তি, আজ্ঞা, অনুমতি, অনুজ্ঞা, বিধান।

আসল : খাঁটি, মূলধন, মেীলিক, মূল, প্রকৃত, যথার্থ।

আদালত : বিচারালয়, কোর্ট, বিচারশালা, বিচারস্থান, কাছারি, এজলাস।

আপ্যায়ন : সমাদর, আদরযত্ন, যত্ন-আত্তি, খাতির, আদর, সেবাযত্ন, আতিথেয়তা।

আকুল : ব্যাকুল, কাতর, ব্যগ্র, উৎসুক, অধীর, উদ্বিগ্ন, আবিষ্ট, কেীতূহলী, অস্থির।

আবেদন : নিবেদন, আরজি, অনুরোধ, দরখাস্ত, চাওয়া, যাচ্ঞা, প্রার্থনা, মাগন।

আধুনিক : সাম্প্রতিক, নব্য, নবীন, বর্তমান, অধুনা, সমকালীন, হালের, অধুনাতন।

আহ্বায়ক : আহ্বানকারী, আমন্ত্রণকারী, নিমন্ত্রণকারী, সম্বোধক, আবাহক।

আফসোস : পরিতাপ, দুঃখ, খেদ, অনুতাপ, অনুশোচনা, আক্ষেপ, শনস্তাপ।

আইন : বিধান, কানুন, বিধি, নিয়ম, নিয়মকানুন, বিহিতক, অনুবিধি, ধারা।

আচমকা : হঠাৎ, চকিতে, সহসা, অকস্মাৎ, অতর্কিতে, আচম্বিতে।

আশ্চর্য : বিস্ময়, চমক, অবাক, অদ্ভুত, বিস্ময়কর, বিস্মিত।

আকার : আকৃতি, চেহারা, ঢং, আদল, গড়ন, গঠন, সেীষ্ঠব, রূপ, কায়া, অবয়ব।

আরম্ভ : শুরু, সূচনা, সুত্রপাত, প্রারম্ভ, উপক্রমণিকা, অবতারণা, আরম্ভণ।

আনন্দ : হর্ষ, হরষ, পুলক, আহ্লাদ, সুখ, ফুর্তি, স্ফূর্তি, উৎফুল্লতা, প্রসন্নতা।

আমন্ত্রণ : নিমন্ত্রণ, আহ্বান, নেমন্তন্ন, সম্ভাষণ, ডাক, আহূতি, আহাবান।

আকাশ : গগন, অন্তরিক্ষ, আসমান, নীলিমা, নভোমন্ডল, নভস্থল, অম্বরতল।

আদি : প্রথম, আরম্ভ, অগ্র, প্রাচীন, উৎস, মূল।

আলো : কিরণ, দীপ্তি, প্রদীপ্তি, জেীলুস, চাকচক্য, রওশন, নুর, ঔজ্জ্বল্য, অংশু।

আবর্তন : প্ররিভ্রমণ, প্রত্যাবর্তন, পুনরাগমন, বেষ্টন, আলোড়ন, ঘোরা, প্রদক্ষিণ।

ইচ্ছা : অভিলাষ, বাঞ্ছা, অভিপ্রায়, স্পৃহা, সাধ, বাসনা, আকাঙ্কা, কামনা, অভিরুচি, প্রবৃত্তি, মনোরথ, ঈপ্সা, অভীপ্সা, আশা, এষণা, মনোবাসনা, মনোবাঞ্ছা।

ইদানীং : সম্প্রতি, আজকাল, অধুনা, হালে, ইদানীন্তন, এইসময়, হালফিল।

ইতি : শেষ, অবসান, খতম, সমাপ্তি, যবনিকাাপাত, সমাপন, ছেদ, সাঙ্গ।

ইন্দ্র : অধিপতি, সুরপতি, দেবপতি।

ঈর্ষা : দ্বেষ, বিদ্বেষ, হিংসা, রেষারেষি, বৈরিতা, পরশ্রীকাতরতা, অন্তর্দাহ।

ঈক্ষা : দৃষ্টি, দেখা, তাকানো, ইঙ্গিত, অবলোকন, ঈক্ষণ, দর্শন, দৃষ্টিপাত।

ঈশ্বর : আল্লাহ, সৃষ্টিকর্তা, স্রষ্টা, পরমাত্মা, করুণাময়, দয়াময়।

পরবর্তী আর্টিকেলে থাকছে ”উ – ঔ” পর্যন্ত। [ স্বরবর্ণ শেষ করা হবে।]

Add comment