আপনার চোখ বাঁচান

Blue light! আপনার চোখ বাঁচান!! কম্পিউটার ইউজারদের জন্য

কম্পিউটার হলো টেকনোলোজির সবচেয়ে বড় বিস্ময়কর আবিস্কার। টেকনোলোজির এই যুগে কম্পিউটার প্রায় সকলেই ব্যবহার করে। অফিস আদালত থেকে শুরু করে চাকরি, বাণিজ্য, কল-কারখানা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সহ সব সেক্টরেই কম্পিউটার ব্যবহৃত হয়। কম্পিউটার ছাড়া চলাই মুশকিল হয়ে পড়েছে। যা মানুষের করা দুর্লভ ছিল, কম্পিউটার আবিস্কারের ফলে তা অনেক সহজ হয়ে পড়েছে। সুতরাং, এভাবেই বলা যায় যে, কম্পিউটার আমাদের জীবনের চলার পথের সাথী! আবার কম্পিউটারই যে আমাদের অনেক বড় ক্ষতি করে ফেলছে, এটা কখনই কেউ ভাবে না। আর ভাবলেও কম্পিউটারের ক্ষতি থেকে বাঁচার উপায় সম্পর্কে প্রায় মানুষেই অবগত নয়। তাই আজকের এই প্রতিবেদন থেকে সবাই জানবো যে, কম্পিউটার কিভাবে ক্ষতি করে এবং এই ক্ষতি থেকে বাঁচতে হলে আমাদের করনীয় কী?

কম্পিউটার আমাদের কিভাবে ক্ষতি করে?

কম্পিউটার মানবজীবনে যেমন সহযোগি তেমনই ক্ষতিকারক। কারণ, কম্পিউটার তৈরি হয়েছে ইলেক্ট্রনিক যন্ত্র দিয়ে। আর ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রের প্রায় সব প্রোডাক্টই মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। এখানে বৈদ্যুতিক শক্তি থাকে। যাইহোক, ওদিকে যেতে চাইনা। কম্পিউটার মানবদেহের মাঝে সবচেয়ে ক্ষতি করে চোখে। তারপর ব্রেনে। মানুষের সবচেয়ে মূল্যবান অঙ্গ হলো চোখ। যার চোখ নেই সে জানে চোখ না থাকার কি করুণ দুঃখ। আমরা যখন কম্পিউটারের স্কিনে তাকিয়ে কাজ করি তখন Blue light নামক এক ক্ষতিকর রশ্মি আমাদের চোখে দারুণ ইফেক্ট ফেলে। এর কারণে এমন হয় যে, আমাদের চোখ থেকে পানি পড়ে, চোখের নিচের অংশ কালো হয়ে যায়।

আবার Blue light এর ক্ষতিকর রশ্মির জন্য অনেক সময় চোখেও কম দেখতে পারেন। বর্তমান এই টেকনোলোজির যুগে LED light সহ প্রায় 99% প্রোডাক্টেই Blue light আছে। যা মানব দেহকে বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করে। তাই Blue light কে কখনই ছোট করে দেখা যাবে না। তাই সময় থাকতেই আমাদের সচেতন হওয়া জরুরি। এই Blue light এর ক্ষতি থেকে নিজের চোখকে বাঁচাতে হলে সবসময় সচেতনতার সাথে কম্পিউটার চালাতে হবে। অন্যথায় চোখ হারিয়ে কাঁদতে হবে! Blue light এর ক্ষতি থেকে সম্পূর্ণরূপে বাঁচার উপায় একটাই। কম্পিউটার ব্যবহার ছেড়ে দিতে হবে। জানি, এটা কেহই ত্যাগ করতে পারবেন না। আমিও পারবো না।

তবে কী করতে হবে? এখন আমাদের চোখকে Blue light থেকে বাঁচানোর উপায় কী?

কম্পিউটার ব্যবহার ছেড়ে দেওয়ার মাঝেই এর সর্বোচ্চ কল্যাণ নিহিত। কিন্তু আমরা তো কম্পিউটার ছাড়া চলতে পারবো না। তাই কিছু নিয়ম ফলো করতেই হবে আমাদের। নাহয় অনেক বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে। আল্লাহ এমন না করুন। আমরা সবাই Blue light এর ক্ষতি থেকে বাঁচতে চাই। তারজন্য নিচের লিংক থেকে একটি ছোট্ট সফটয়্যার ডাউনলোড করে আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপে ইনিস্টল করে নিন।

  • কোম্পানির অফিসিয়াল সাইট থেকে ডাউনলোড করুন। File size: 639 Kb, Software Name: f.lux , Download

কম্পিউটার / ল্যাপটপে ইনিস্টল করার পর এমন দেখেতে পারবেন। এখান থেকে স্কিনের আলোটা একটু কমিয়ে নিন।

7হ

স্কিনটা একটু ঘোলাটে হবে যাবে। এতে করে Blue light এর ক্ষতিকর রশ্মির ইফেক্টটা চোখে কম পড়বে। হয়ত প্রথমত স্কিনটি ঘোলাটে হওয়ার কারণে আপনার অন্যরকম লাগতে পারে। সমস্যা অনুভব হতে পারে। তবে ১/২ দিন ব্যবহারের পর সব ঠিক হয়ে যাবে।

অনেকে প্রশ্ন করতে পারেন, এটা ব্যবহার করলে কি চোখে আর কোন সমস্যা হবে না?

ভাই, বাংলায় একটা প্রবাদ আছে, ”নাই মামার চেয়ে কানা মামা ভালো”। আসলে এটাও তাই। আমাদের চোখকে বাঁচাতে স্থায়ী সমাধান হলো কম্পিউটার ব্যবহার ছেড়ে দিতে হবে। আর নাহয় চোখতে বাঁচাকে অন্তত কার্যকারী চেষ্টা করতে হবে। এই সফটয়্যারটা Blue light এর ক্ষতিকর রশ্মি থেকে আপনাকে চোখকে বাঁচাতে হেল্প করবে। অনেক উপকৃত হবেন। পরিশেষে সবার প্রতিই ভালোবাসা রেখে আজকের মতো এখানেই শেষ করছি। আল্লাহ সবার মঙ্গল করুন। আমিন! আল্লাহ হাফেজ।

1 comment

  • চমৎকার একটি লেখা। অনেক উপকৃত হলাম ভাই। নতুন জানলাম বিষয়টা। খুবই গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট।