What is Backlink ব্যাকলিংক কি

ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে কাজ করে?

​এসইওর কথা আসলেই চারদিকে ব্যাকলিংকের কথা বলা হয়। What is Backlink? আসলে ব্যাকলিংক কি? ওয়েবসাইট রেংকিংয়ের জন্য ব্যাকলিংক কতটুতু গুরুত্বপূর্ণ এবং এসইওতে ব্যাকলিংক কিভাবে কাজ করে? নতুনদের মাঝে এই বিষয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন ও কনফিউশন থাকে। তাই ব্যাকলিংক (Backlink) এর গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো নিয়েই আজকের আলোচনা।

ব্যাকলিংক কি?

​ব্যাকলিংক ”লিংক বিল্ডিং” নামেও পরিচিত। এটা ওয়েবসাইট এসইওর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আশাকরি আপনারা সকলেই এসইও সম্পর্কে জানেন। ব্যাকলিংয়ের মাধ্যমে একটি ওয়েবসাইট খুব সহজেই সার্চ ইঞ্জিনে র‌্যাঙ্ক করে। ব্যাকলিংক এর মূল কাজ হচ্ছে একটি ওয়েবসাইটের সাথে আরেকটি ওয়েবসাইটের বন্ধুত্ব স্থাপন করা।

ব্যাকলিংক কিভাবে কাজ করে?

মনে করেন আপনার একজন বন্ধু আছে। আপনার নিজের কমিউনিটিতে আপনার বন্ধুর বিশেষ প্রশংসা করলেন, পাশাপাশি আপনার বন্ধুর কমিউনিটিতে সেও আপনার বিশেষ প্রশংসা করলো। এতে করে আপনাদের উভয় বন্ধুর মাঝেই একটি গুণ সৃষ্টি হলো এবং সাধারণ মানুষের মাঝে আপনাদের প্রতি বিশ্বস্ততা এবং ভালোবাসা সৃষ্টি হবে। এর ফলে আপনাদের উভয় বন্ধুই সহজেই মানুষের হৃদয়ে স্থান পেয়ে যাবেন এবং দুই বন্ধুই সামাজিক সম্মানে এগিয়ে যাবেন। একটি ওয়েবসাইটের জন্য ব্যাকলিংক এভাবেই কাজ করে।

What are backlinks | ব্যাকলিংক কি

ব্যাকলিংক ” লিংক বিল্ডিং ” -এর একটি অংশ। লিংক বিল্ডিং বলতে অনেকগুলো ব্যাকলিংকের সমন্বয়। একটি ওয়েবসাইটের জন্য যতবেশী ব্যাকলিংক জেনারেট করা যাবে সেই ওয়েবসাইটের ফাউন্ডেশন বা ভিটা ততই মজবুত। এবং রেংকিংয়ে সেই ওয়েবসাইটের ভ্যালু ততই বেশী হবে। প্রতিটি সার্চ ইঞ্জিনই লিংক বিল্ডিং বা ব্যাকলিংক কে খুবই গুরুত্বের সাথে দেখে। তাই যে কোন ধরণের ওয়েবসাইটকে রেংকিয়ে নিয়ে আসার জন্য ব্যাকলিংক তৈরি করার বাধ্যবাধকতা আছে।

Backlink য়ে ব্যবহৃত লিংক দুই প্রকারঃ

ব্যাকলিংক -এর মাধ্যমে দুই ধরণের লিংক ব্যবহার করা হয়। ইন্টারনাল লিংক ( Internal link ) এবং এক্সটারনাল লিংক ( External Link ) এন্টারনাল । এই দুই ধরণের লিংকই খুবই পাওয়ারফুল।

Internal Link | ইন্টারনাল লিংক কি?

আপনি যখন ওয়েবসাইটের ভিতরের একটি পেজ বা পোষ্টের সাথে অপর পেজ বা পোষ্টকে লিংক করাবেন তখন সেটা ইন্টারনাল লিংক বলে বিবেচিত হবে। এটাকে ইনবাউন্ড লিংক ( Inbound Link)  বলা হয়। ​সার্চ ইঞ্জিনে একটি ওয়েবপেজ র‌্যাংকিং এর ক্ষেত্রে ইনবাউন্ড লিংক এর গুরুত্ব অনেক বেশী। ইন্টারনাল লিংক বা ইনবাউন্ড লিংক -এর মাধ্যমে ওয়েবসাইটের এক পেজ থেকে অপর পেজ বা এক পোষ্ট থেকে অপের পোষ্টের মাঝে লিংক জুস সঠিক ভাবে পাস হতে পারে। এই ধরণের লিংক সাধারণত Dofollow Link হয়ে থাকে।

এক্সটারনাল লিংক | External Link :

আপনি যখন আপনার ওয়েবসাইটের ভিতরের কোন পেজ বা পোষ্টের সাথে অন্য ওয়েবসাইটের কোন লিংক করাবেন, তখন সেটা এক্সটারনাল লিংক বলে বিবেচিত হবে। এটাকে আউটবাউন্ড লিংক ( Outbound Link) ও বলা হয়। এই ধরণের লিংকগুলো সাধারণত Nofollow Link হয়ে থাকে। তবে অনেক সময়  Dofollow Link ও হয়। এখন অনেকেই প্রশ্ন করবেন Dofollow Link এবং Nofollow Link কি?

কাঠামো ভেদে লিংক দুই প্রকারঃ

ইন্টারজুড়ে যত লিংক আছে, কাঠামো ভেদে লিংক দুই প্রকারঃ Dofollow Link এবং Nofollow Link . সাধারণত এই দুটি লিংকের কাজ একই। তবে দুটি লিংকেরই ভেতরকার কিছু পার্থক্য রয়েছে। এই পার্থক্যগুলো সাধারণ ইউজারদের কাজে আসে না। সার্চ ইঞ্জিনের বটকে বুঝানোর জন্য এইসটিএমএল এট্রিবিউটের মাধ্যমে Dofollow Link এবং Nofollow Link চিহ্নিত করে দেওয়া হয়।

Dofollow Link -এমন ধরণের লিংক যেটা সার্চ ইঞ্জিনগুলো ফলো করে। অর্থাৎ একটা ওয়েবসাইট থেকে আরেকটা ওয়েবসাইটকে লিংক দেওয়া হচ্ছে এটা সার্চ ইঞ্জিন ক্যাচ করে বা কাউন্ট করে।

code example | Dofollow লিংক কোডটি এমন হয়

<ahref=”https://www.itnitman.com/url_address”>Example</a>

Nofollow Link – এটা এমন ধরণের লিংক যেটা এইসটিএমএল এট্রিবিউটের মাধ্যমে সার্চ ইঞ্জিন গুলোকে বলে দেওয়া হয় যে, এই লিংকটা ফলো করে না। একটি ওয়েবসাইট থেকে আরেকটি ওয়েবসাইটকে লিংক দেওয়ার পরও সার্চ ইঞ্জিনকে আলাদা ভাবে বলে দেওয়া হয়, এই লিংকটা তুমি কাউন্ট করো না। অর্থাৎ রেংকিংয়ের জন্য এই লিংকটাকে কার্যকরী করো না।

code example | Nofollow লিংক কোডটি এমন হয়

<a href=”https://www.itnitman.com/url_address” rel=”nofollow”>Example</a>

এখন অনেকেই প্রশ্ন করবেন যে, তাহলে কি আমাদের ওয়েবসাইটের জন্য Nofollow Link বিল্ড করবো না? অবশ্যই করবেন। কেন করবেন না? Nofollow Link যদিও আপনার সাইটের রেংকিংয়ের জন্য কাজ করবে না।  তবুও এই লিংকগুলো একটি ওয়েবসাইটের জন্য প্রয়োজন। এই লিংকগুলো দ্বারা আনলিমিটেড ভিজিটর পাবেন। যেটা অবশ্যই ওয়েবসাইটের জন্য জরুরি।

বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে আমরা যেই লিংকগুলো পাই সবগুলোই Nofollow Link হয়। এজন্য কি সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাদের ওয়েবসাইটের লিংক শেয়ার করবো না? অবশ্যই শেয়ার করা প্রয়োজন। কারণ, ওখান থেকে আমরা ভিজিটর পাই। যদিও সরাসরি জুস আসবে না, তবে এতে করে আমাদের ওয়েবসাইটের ভ্যালু বাড়বে।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

যে কোন ধরণের ওয়েবসাইটকে এসইও করতে গেলে অবশ্যই ইন্টারনাল লিংক ( Internal link ) এবং এক্সটারনাল লিংক ( External Link ) এর ব্যবহার অনেক গুরুত্বপূর্ণ। পাশাপাশি Dofollow Link এবং Nofollow Link এর ব্যবহারও করতে হবে।

অনেকেই বলে এসইওর জন্য ওয়েবসাইটে Dofollow Link বিল্ড করো আর Nofollow Link বিল্ড করো না। এটা মোটেও সঠিক নয়। সার্চ ইঞ্জিনগুলো সবসময় ন্যাচারাল লিংক বিল্ডিং পছন্দ করে। তাই ওয়েবসাইট এসইওর জন্য লিংক বিল্ডিং এমন ভাবে করতে হবে যেটা সার্চ ইঞ্জিনের কাছে ন্যাচারালি মনে হয়। লিংক বিল্ডিং করতে গিয়ে স্প্যামিং করা যাবে না। তবে উপকারের চেয়ে অপকারের দিকটাই ভারি হয়ে যাবে।

যে কোন ওয়েবসাইট বা ডোমেইন থেকে লিংক পাওয়ার নামই হলো ব্যাকলিংক। অনেকগুলো লিংককে একত্রে লিংক বিল্ডিং বলা হয়। লিংক বিল্ডিং বা ব্যাকলিংক অনেক ভাবেই জেনারেট করা যায়। এই বিষয়ে পরবর্তীতে আলোচনা করা হবে ইনশাআল্লাহ।

👉 বাউন্স রেট (Bounce Rate) কি? ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট কমানোর সেরা ১০ উপায়

10 comments