কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব - ঘরে বসে কম্পিউটার শিখুন

কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব | ঘরে বসে কম্পিউটার শিখুন

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির এই যুগে কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব অপরসীম। শুধুমাত্র কম্পিউটার না জানার কারণে প্রায় ৬০% মানুষের জব চান্স মিস হয়। পরীক্ষায় ভালো রেজাল্টের পাশাপাশি যাদের কম্পিউটার চালানোর অভিজ্ঞতা রয়েছে তারা সবদিক থেকেই অন্য সবার চেয়ে অনেকটা এগিয়ে থাকে।

আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা যে কোনো ব্যাকগ্রাউন্ডের হোকনা কেন, কম্পিউটার বিষয়ে দক্ষতা থাকলে আপনার জন্য বিভিন্ন ধরণের জব পাওয়ার অপর্চুনিটি রয়েছে।

তাছাড়া, সময়ের সাথে সাথে নিজেকে আপডেট রাখতে কম্পিউটার শেখার গুরুত্বের কথা বলে শেষ করা যাবে না। ২০২২ সালে পদার্পণ করার পর আপনিও হয়ত এই বিষয়ে কিছুটা আন্দাজ করতে পারছেন।

অনেকেই কম্পিউটার শেখার উপকারিতা বুঝেন, তাই গুরুত্বের সাথে নিজ থেকেই কম্পিউটার শিখতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। এই প্রতিবেদনটি মূলত তাদের জন্যই তৈরি করা হয়েছে।

আজ আমি আপনাকে কম্পিউটার শেখার সহজ পদ্ধতি বলে দেবো। ”ঘরে বসে কম্পিউটার শিখুন” এই স্লোগানকে সামনে রেখে চলুন শুরু করা যাক।

নতুনদের জন্য কম্পিউটার শিক্ষা

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব অনেক এবং সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে এর কোনো বিকল্প পথ নেই।

শুরুতেই বলেছি, শুধুমাত্র কম্পিউটার না জানার কারণে প্রায় ৬০% মানুষের জব চান্স মিস হয়। এটা আমাদের প্রত্যেকের জন্যই হতাশার কারণ হতে পারে।

তাই বর্তমানে কলেজ -ভার্সিটির পাশাপাশি প্রাথমিক শিক্ষা থেকেই কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে। আপনি যদি একবারে নতুন হন এবং কম্পিউটার কিভাবে ব্যবহার করবেন তা যদি না জানেন তবে চিন্তার কারণ নেই।

নতুন অবস্থায় কম্পিউটারের বেসিক জানাটাই অনেক গুরুত্বপূর্ণ এবং এই বিষয়টি সম্পর্কে আপনি এখনই জেনে নিতে পারবেন। কম্পিউটারের বেসিক বলতে সাধারণত যা বুঝানো হয় তা নিচে তুলে ধরা হলো।

বেসিক কম্পিউটার শিক্ষা কি?

কম্পিউটার হার্ডওয়্যার (Computer hardware) সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান, কম্পিউটার মোটামুটি অপারেট করতে জানা মূলত বেসিক শিক্ষার মধ্যে পড়ে।

তবে কম্পিউটার অপারেট করার মানে এইনা যে, কম্পিউটার ON -OFF করতে জানা আর কম্পিউটার দিয়ে অডিও-ভিডিও গান শোনা।

কম্পিউটার অপারেট বা চালানোর মধ্যে অনেক বিষয় রয়েছে, যা আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কম্পিউটার চালানোর জন্য শিখে নেওয়া প্রয়োজন।

বেসিক কম্পিউটার কোর্স সিলেবাসে যা যা থাকে

  • কম্পিউটার হার্ডওয়্যার পরিচিতি
  • বেসিক সফটওয়্যার ম্যানেজমেন্ট
  • মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন
  • ইন্টারনেট ব্রাউজিং
  • বাংলা -ইংরেজি টাইপিং
  • কিবোর্ড শর্টকাট
  • কম্পিউটার ফাইল -ফোল্ডার ম্যানেজমেন্ট
  • বেসিক ট্রাবলশুটিং ( ছোট ছোট সমস্যার সমাধান) করা ইত্যাদি।

এই বিষয় গুলো কম্পিউটার শিক্ষার বেসিক সিলেবাসে রয়েছে। কম্পিউটার শেখার ক্ষেত্রে নতুন হিসেবে এই বিষয় গুলো জানা এবং শেখা সবার জন্যই প্রযোজ্য।

কম্পিউটার শেখার মানেই হলো নিজেকে প্রযুক্তির জ্ঞানে সমৃদ্ধ করা। বর্তমানে জব সার্কুলার গুলোতে দেখা যায়, কম্পিউটার ব্যবহারের অভিজ্ঞ থাকলে তাদেরকে জব পেতে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।

শুধু জব না, পড়াশোনা ও দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন হিসেবের জটিল সমস্যা গুলো সমাধানের ক্ষেত্রেও কম্পিউটারে অভিজ্ঞার প্রয়োজন হয়।

ঘরে বসে কম্পিউটার শেখার সহজ পদ্ধতি

ঘরে বসে নিজে নিজেই কম্পিউটারের জ্ঞান আয়ত্ব করার জন্য সময়োপযোগী এবং সবেচেয়ে ভালো ও সাশ্রয়ী উপায় হলো “ইন্টারনেট ( Internet)”.

ইন্টারনেট এমন একটি প্রযুক্তি যা মানুষের দৈনন্দিন কাজের গতি অনেক বাড়িয়ে দিয়েছে। ইন্টারনেটেকে ব্যবহার করে এখন ঘরে বসেই যে কোনো বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ নেওয়া সম্ভব।

ইন্টারনেট ব্যবহার করে ঘরে বসেই কম্পিউটার শেখার জন্য আপনার একটি মোবাইল থাকলেই চলবে। আবার এই মোবাইলে “ওয়াইফাই (Wi-Fi) অথবা ডেটা কানেকশন (Sim Internet) এর প্রয়োজন হবে।

ইন্টারনেট ছাড়াও ঘরে বসে কম্পিউটার শেখার জন্য বিভিন্ন লেখকের বই পড়তে পারেন। বই পড়েও কম্পিউটারের বেসিক জ্ঞান আয়ত্ব করা সম্ভব।

ইন্টারনেট ব্যবহার করে ৪ টি উপায়ে কম্পিউটার শিখুন

ইন্টারনেট ব্যবহার করে কম্পিউটার শেখার জন্য আপনার মোবাইল ফোন (Smrtphone) আছে নিশ্চই। কম্পিউটার শেখার আগে আপনাকে অবশ্যই একটি টার্গেট সামনে রেখে কাজ শিখতে হবে।

কেননা, নতুনদের জন্য কম্পিউটার শিক্ষার শুরুটা এক জায়গা থেকে হয়, আবার যারা মোটামুটি কম্পিউটার চালাতে জানে তাদের জন্য আরেক জায়গা থেকে শুরু করতে হয়।

আপনি যদি পুরোপুরিই নতুন হন, তবে আপনাকে প্রথমেই কম্পিউটার ON -OFF করা এবং কিবোর্ড ও মাউসের ব্যবহার শিখতে হবে।

অন্যদিকে যারা কম্পিউটার ON -OFF করা এবং কিবোর্ড ও মাউসের ব্যবহার সহ আরো বেসিক বিষয়াদি সম্পর্কে জানে তাদেরকে সফটওয়্যারের কাজ শিখতে হবে।

সফটওয়্যারের কাজ বলতে Microsoft office এবং Browsing সম্পর্কিত সহজ ও বেসিক সফটওয়্যারের কাজ শেখার কথাই বলা হচ্ছে।

এই ধরণের বেসিক লেভেলের কাজ সম্পূর্ণ ফ্রিতেই আপনি ইন্টারনেট থেকে শিখে নিতে পারবেন। এমন বেসিক কম্পিউটার শিক্ষা কোর্স ইন্টারনেটে হাজার হাজার রয়েছে।

চলুন এবার জেনে নিই ইন্টারনেট থেকে কিভাবে বেসিক কম্পিউটার নলেজ আয়ত্ব করা যায়।

১. ইউটিউব ভিডিও দেখে কম্পিউটার শিখুন

ইন্টারনেট থেকে কম্পিউটার শেখার জন্য YouTube হলো সবচেয়ে সেরা মাধ্যম। ইউটিউবে বিভিন্ন ধরণের বেসিক কম্পিউটার কোর্স রয়েছে।

তাছাড়া, কম্পিউটারের উপর লক্ষ লক্ষ ভিডিও টিউটোরিয়াল আপনি ইউটিউবে পেয়ে যাবেন। যা বিনামূল্যে কম্পিউটার প্রশিক্ষণের জন্য সেরা চয়েজ।

YouTube ভিডিও দেখে কম্পিউটার শেখা অনেক সহজ। বর্তমানে প্রায় মানুষের কম্পিউটার অভিজ্ঞতার পেছনে YouTube খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে।

YouTube এর একটি সুবিধা হলো এখানে সব ধরণের ভিডিও সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সরবারহ করা হচ্ছে। তাছাড়া, প্রায় সকল ভাষায় ভিডিও পাওয়া যায়।

আপনি যদি ইউটিউবে “কম্পিউটার কোর্স” বা “কম্পিউটার বেসিক কোর্স” এই ধরণের কিওয়ার্ড লিখে সার্চ করেন তবে অনেক ভালো ভালো টিউটোরিয়াল পেয়ে যাবেন।

তাছাড়া, আপনি চাইলে Microsoft Excel, Word, PowerPoint এবং Photoshop এর মতো সফটওয়্যার গুলোর কাজও নিজ ঘরে বসে YouTube ভিডিও দেখে শিখে নিতে পারবেন।

২. pdf টিউটোরিয়াল বই পড়ে কম্পিউটার শিখুন

অনলাইনে ভিডিও দেখে যেভাবে কম্পিউটার শেখা যায়, ঠিক তেমনীভাবে pdf বা ই-বুক এর মাধ্যমে কম্পিউটার শিখে নিতে পারবেন।

pdf এর মানে হলো ইলেক্ট্রনিক (Portable Document Format) বই। অর্থাৎ, সেই বই ডিজিটাল ডিভাইসের (Device) মাধ্যমে পড়া যায়। পিডিএফ বই গুলো মূলত বিভিন্ন ফিজিক্যাল বইয়ের ইলেক্ট্রনিক ভার্সন।

বই পড়ে কম্পিউটার শেখার জন্য আপনি চাইলে সরাসরি লাইব্রেরী থেকে বই কিনতে পারেন, অথবা pdf বইয়ের সাহায্য নিতে পারেন।

pdf বইয়ের সুবিধা হলো এগুলো ইন্টারনেটে বিনামূল্যেই পাওয়া যায়। আবার মোবাইলের মাধ্যমে এই ধরণের বই সংগ্রহ করে পড়া যায়।

আপনি যদি Google -এ ”বেসিক কম্পিউটার কোর্স pdf” বা কম্পিউটার শিক্ষা বই pdf লিখে সার্চ দেন তবে অগণিত পিডিএফ বই আপনার সামনে এসে হাজির হবে।

সেখান থেকে পছন্দ মতো আপনি বই ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

৩. ওয়েবসাইট থেকে কম্পিউটার শিখুন

ঘরে বসে কম্পিউটার শেখার সহজ পদ্ধতি হলো বিভিন্ন ওয়েবসাইট। আপনি যদি ইন্টারনেটে Google search engine এ “online computer course” বা “basic computer course” লিখে সার্চ করেন, তবে কম্পিউটারের উপর বিভিন্ন ধরণের কোর্স দেখতে পারবেন।

এই কোর্স গুলোর মধ্যে অনেক গুলো ফ্রি কোর্স, আবার অনেকগুলো পেইড কোর্স। ফ্রি কোর্স গুলো দেখার মাধ্যমেই আপনি কম্পিউটারের বেসিক জ্ঞান আয়ত্ব করে নিতে পারবেন।

অনলাইনে এমনও কোর্স রয়েছে, যেই কোর্স গুলো করার পর আপনাকে পরীক্ষার মাধ্যমে সার্টিফিকেট (certificate) দেওয়া হবে। এই ধরণের কোর্স গুলোর লেকচার মূলত ইংরেজি ভাষায় হয়।

ওয়েবসাইট ভিত্তিক কোর্স গুলো দুই ধরণের হতে পারে। () ভিডিও কোর্স (২) pdf বা আর্টিকেল ভিত্তিক কোর্স।

ভিডিও কোর্সের বেশীর ভাগই পেইড হয়। আবার আর্টিকেল ভিত্তিক কোর্স গুলো সাধারণত ফ্রি হয়।

কম্পিউটার শেখার জন্য দুটি ওয়েবসাইটঃ

এই দুটি ওয়েবসাইট থেকে আপনি বেসিক কম্পিউটার খুব সহজেই শিখে নিতে পারবেন।

৪. Apps থেকে কম্পিউটার শিখুন

ঘরে বসে কম্পিউটার শেখার জন্য Google Play Store এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের Android মোবাইলের অ্যাপস পাওয়া যায়। আবার iPhone এর জন্যেও রয়েছে App Store এর মাধ্যমেও বিভিন্ন ধরণের কম্পিউটার শেখার অ্যাপস।

এই ধরণের অ্যাপস থেকে আপনি খুব সহজেই কম্পিউটারের বেসিক শিখে নিতে পারবেন।

বাংলা ভাষায় দুটি কম্পিউটার শিক্ষা অ্যাপসঃ

এই অ্যাপসগুলো ছাড়াও বাংলা ভাষায় Android Mobile এর জন্য Google Play Store এ আরো বিভিন্ন অ্যাপস রয়েছে।

 গুরুত্বপূর্ণ আরো কিছু কথাঃ

প্রিয় পাঠক, উন্নত বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই কম্পিউটার শেখার প্রতি প্রবল জোর দেওয়া হয়। তাছাড়া, সাধারণ মানুষও কম্পিউটার শেখার প্রতি বেশ মনোযোগী। আমাদের বাংলাদেশকেও এগিয়ে নিয়ে যেতে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কম্পিউটার শিক্ষার গুরুত্ব অপরসীম।

যারা কম্পিউটার শেখার গুরুত্ব বুঝার পর মনে করেন যে কম্পিউটার কোর্স করতে চাই, তারা অবশ্যই উপরের স্টেপ গুলো ফলো করতে পারেন। এতে করে কম্পিউটারের বেসিক জ্ঞান নিশ্চয় আয়ত্ব করে নিতে পারবেন।

তাছাড়া, অনেকেই অনলাইনে ভার্চুয়াল ক্লাসের মাধ্যমে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দেয়। আপনি চাইলে তাদের ক্লাসে যুক্ত হয়ে কম্পিউটার শিখে নিতে পারেন।

আমরা প্রতিয়তিই কম্পিউটারের উপর বিভিন্ন আর্টিকেল প্রকাশ করছি। তাছাড়া, ইউটিউব এবং ফেসবুকেও শত শত মানুষকে কম্পিউটার বিষয়ে যথাসাধ্য হেল্প করছি।

NAZIRUL ISLAM NAKIB

যত জ্ঞান-ধন করেছি অর্জন জীবনের প্রয়োজনে,
তার সবটুকুই বিলাতে চাই সৃষ্টির কল্যাণে।

Add comment