সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কিভাবে করতে হয়?

ডিজিটাল মার্কেটিং এর খুবই কমন একটি পার্ট হলো সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং। অনলাইন ভিত্তিক যত মার্কেটিং রয়েছে তারমধ্যে সবচেয়ে সহজ এবং দ্রুত কার্যকরী হিসেবে Social media marketing কে প্রথম স্থানে রাখা হয়।

সকলেই জানেন, প্রযুক্তির এই যুগে ব্যবসা-বাণিজ্য ইন্টারনেটে নির্ভর হয়ে পড়ছে।

আর ইন্টারনেটে ভিত্তিক যে কোন ব্যবসা-বাণিজ্যিক কর্মকান্ড পরিচালনার জন্য ডিজিটাল মার্কেটিং এর শরণাপন্ন হতেই হবে।

ডিজিটাল প্রচার অভিযান চালানোর জন্য Social media marketing অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

সোশাল মিডিয়াতে বিলিয়ন বিলিয়ন মানুষ নিয়মিত এক্টিভ থাকার কারণে ডিজিটাল বাণিজ্যের ব্যাপক উন্নতি ঘটেছে।

কেননা, সোশ্যাল প্লাটফর্মকে ব্যবহার করে অল্প সময়েই যে কোন প্রোডাক্টের কাঙ্খিত গ্রাহক পাওয়া এবং টার্গেট করে প্রচারণা করা যায়।

এজন্য ট্রেডিশনাল মার্কেটিং থেকে ডিজিটাল মার্কেটিংকে অত্যন্ত সাশ্রয়ী এবং কার্যকর বলে সাব্যস্ত করা হয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?

সহজ ভাবে বললে, Social media marketing (SMM) হলো একটি সময়োপযোগী টেকনিক, যা ব্যবহার করে বিভিন্ন সোশ্যাল প্লাটফর্ম যেমন, Facebook, YouTube, Twitter, Pinterest, Instagram সহ আরো সোশ্যাল প্লাটফর্মে যুক্ত থাকা মানুষের কাছে টার্গেট করে বাণিজ্যিক পণ্যের প্রচার অভিযান চালানো হয়।

যেটাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর ভাষায় Social media advertisement বলা হয়।

সোশ্যাল মিডিয়া এডভার্টাইজমেন্ট এর মধ্যমে আপনি যে কোন পণ্যের টার্গেট কাস্টমার সহজেই খুঁজে পাবেন।

তাই Social media marketing প্রক্রিয়াটি ডিজিটাল মার্কেটিং এর অত্যন্ত গুরুত্ব পার্ট হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

আপনার যদি কোন নিজস্ব সার্ভিস বা প্রোডাক্ট থাকে তবে আপনি যে কোন সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি প্রোফাইল খোলার মাধ্যমে আপনার কাঙ্খিত বিষয়ের মার্কেটিং করতে পারবেন।

শুধু সার্ভিস বা প্রোডাক্টই নয়, আপনার যদি একটি ব্লগ ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেল থাকে তবে আপনার সেই ইউটিউব চ্যানেল বা ব্লগ মার্কেটিং করার জন্য সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করতে পারবেন।

যারা প্রফেশনালি ইন্টারনেট মার্কেটিং করে তারা শুরুতেই সোশ্যাল মিডিয়াকে টার্গেট করে, পাশাপাশি এসইও (SEO) মার্কেটিংও করে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর গুরুত্ব

অনলাইন ভিত্তিক যত পার্সোনাল বা বাণিজ্যিক মার্কেটিং রয়েছে, তার অধিকাংশ বিষয়টি সোশ্যাল মিডিয়া দ্বারা পরিচালিত হয়।

মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়ার সুফল রয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট অত্যন্ত সহজ হওয়ার কারণে যে কোন শ্রেণী-পেশার মানুষের কাছে এটি সহজলভ্য।

আমরা সাধারণত সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করি নিজেদের পার্সোনাল বিষয়াদি বন্ধুদের মাঝে শেয়ার করার পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ের নতুন নতুন খবর জানার উদ্দেশ্যে।

কিন্তু আপনি জানলে অভাব হবেন, এই সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে বিশ্বব্যাপী একটি ডিজিটাল বাণিজ্য গড়ে উঠেছে।

ইন্টারনেট ভিত্তিক বাণিজ্যে সোশ্যাল মিডিয়ার প্রভাব দিন দিন বেড়েই চলছে।

আপনি যদি চান, তাহলে নিজ ঘরে বসেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে আয় করতে পারবেন।

আপনাকে সোশ্যাল মিডিয়ার এক্টিভ ইউজার সংখ্যা সম্পর্কে বলি। তাহলে সহজেই বুঝতে পারবেন কেন Social media marketing করা উচিত।

সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীর পরিসংখ্যান

ইন্টারনেট ইউজারদের মধ্যে সবচেয়ে বেশী ইউজার ধরে রেখেছে সোশ্যাল মিডিয়া গুলো।

সাধারণত আমরা যদি আমাদের নিজেদের কথাই চিন্তা করি, আমরা ইন্টারনেট চালাতে গিয়ে সবচেয়ে বেশী সময় কোথায় ব্যয় করি?

নিশ্চয় এর উত্তর হবে Social media.

সোশ্যাল মিডিয়া গুলোর ব্যবহারকারীদের একটি ছোট্ট পরিসংখ্যান দিলে হয়ত আপনারা সহজেই বিষয়টা বুঝতে পারবেন।

() Facebook

Facebook  প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 21.1 billion মানুষ এক্টিভ থাকে। তাদের ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট (Bounce Rate) হলো  32.71% এবং Avg Visit Duration হলো 10:07 মিনিট।

তাদের Global Rank 3, Country Rank 3 এবং Category Rank 1.

বুঝতেই পারছেন, সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার জন্য ফেসবুক কতটুকু উপযোগী।

(২) YouTube

YouTube প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 35.9 billion visitors এক্টিভ থাকে।

তাদের ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট (Bounce Rate) হলো  19.85% এবং Avg Visit Duration হলো 21:19 মিনিট।

তাদের Global Rank 2, Country Rank 2 এবং Category Rank 1.

(৩) Twitter

Twitter প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 7 billion visitors এক্টিভ রয়েছে।

তাদের ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট (Bounce Rate) হলো  31.81% এবং Avg Visit Duration হলো 10:41 মিনিট।

তাদের Global Rank 5, Country Rank 5 এবং Category Rank 2.

(৪) Pinterest

Pinterest প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 980 million মানুষ এক্টিভ রয়েছে।

তাদের ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট (Bounce Rate) হলো  45.01% এবং Avg Visit Duration হলো 05:17 মিনিট।

তাদের Global Rank 30, Country Rank 28 এবং Category Rank 8.

(৫) Instagram

Instagram প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 6.8 billion visitors কানেক্টেড রয়েছে।

তাদের ওয়েবসাইটের বাউন্স রেট (Bounce Rate) হলো  34.79% এবং Avg Visit Duration হলো 07:51 মিনিট।

তাদের Global Rank 4, Country Rank 7 এবং Category Rank 3.

বুঝতেই পারছেন উপরোল্লিখিত সোশ্যাল প্লাটফর্ম গুলো ব্যবহার করে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার যথাপোযুক্ত কারণ রয়েছে।

অনলাইন মার্কেটিং করার জন্য Social media platform কে সবার সামনে রাখা উচিত।

জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া নির্বাচন

ইন্টারনেটে বিভিন্ন ধরণের সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার রয়েছে।

Social media marketing করার ক্ষেত্রে আপনাকে একচেটিয়া ভাবে সব ধরণের সোশ্যাল মিডিয়া একসাথে টার্গেট করা উচিত হবে না।

আপনাকে ইন্টারনেটে ঘেটে ঘেটে দেখতে হবে যে, কোন সোশ্যাল মিডিয়া গুলো সবচয়ে জনপ্রিয়।

আপনার উচিত হবে সবচেয়ে জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া গুলোকেই টার্গেট করে মার্কেটিং এর কাজ শুরু করা।

তাহলে আপনি অতি অল্প সময়েই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে সাকসেস হতে পারবেন।

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় কিছু Social media platform এর নাম নিচে তুলে ধরা হলো।

ফেসবুক মার্কেটিং

Facebook Marketing বর্তমান সময়ের সবচেয়ে বেশী আলোচিত বিষয়।

সোশ্যাল মিডিয়া বিপণন বা মার্কেটিং করার কথা বলা হলে প্রথমেই ফেসুবক মার্কেটিং এর কথা চলে আসে।

এর যথেষ্ট যুক্তিও রয়েছে। সেদিকে যাব না।

ফেসবুক মার্কেটিং করার জন্য Facebook  প্লাটফর্ম এর 21.1 billion ইউজারকে টার্গেট করার প্রয়োজন নেই।

আপনি যদি আপনার কাঙ্খিত বাণিজ্যের সাফল্যের জন্য ০ হাজার মানুষকে টার্গেট করতে পারেন, তবে আপনি যে কোন বাণিজ্যের জন্য একটি চমৎকার পর্যায়ে চলে যেতে পারবেন।

ফেসবুক মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত ভাবে আলাদা একটি আর্টিকেল খুব শিঘ্রই প্রকাশ করা হবে ইনশাআল্লাহ।

ইউটিউব মার্কেটিং

ভিডিও মার্কেটিং এর জন্য YouTube হলো সময়োপযোগী একটি সোশ্যাল প্লাটফর্ম।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ে ভিডিও মার্কেটিং এর অনেক গুরুত্ব রয়েছে।

এক্ষেত্রে ইউটিউব প্লাটফর্মকে Video Marketing এর জন্য সিলেক্ট করা জরুরি।

যদিও ইউটিউব ছাড়া আরো বিভিন্ন প্লাটফর্ম আছে, যেগুলোতে ভিডিও মার্কেটিং করা যায়।

তবে YouTube এর মাসিক 35.9 billion এক্টিভ ব্যবহারকারীর কাছে অন্য সব সোশ্যাল মিডিয়া অনেকটা অসহায় বলা যায়।

তাই ভিডিও মার্কেটিং করার ক্ষেত্রে ইউটিউবকে বেছে নেওয়াই শ্রেয়।

ইউটিউব মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত ভাবে একটি আর্টিকেল প্রকাশ করা হবে ইনশাআল্লাহ।

পিনটারেস্ট মার্কেটিং

Social media marketing করার জন্য Pinterest Marketing অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

পিন্টাররেস্ট সোশ্যাল প্লাটফর্মটি আমাদের বাংলাদেশে যদিও তেমন জনপ্রিয় নয়।

তবে উন্নত বিশ্বে Pinterest Marketing এর চাহিদা অনেক।

Pinterest প্লাটফর্মে প্রতি মাসে 980 million এক্টিভ ইউজার রয়েছে।

পিন্টাররেস্টে আপনি খুব সহজেই টার্গেট বিষয়ের মার্কেটিং করতে পারবেন।

তাই Social media marketing এর জন্য Pinterest কে গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

পিন্টাররেস্ট মার্কেটিং নিয়ে আমি বিস্তারিত একটি আর্টিকেল প্রকাশ করবো ইনশাআল্লাহ।

টুইটার মার্কেটিং

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ে Twitter Marketing অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

টুইটার প্লাটফর্মটি প্রায় ফেসবুক প্লাটফর্ম এর মতই।

এখনে আপনি বিভিন্ন ভাবে মার্কেটিং এর কাজ ম্যানেজ করতে পারবেন।

Twitter প্লাটফর্মটি 7 billion মাসিক visitors ধরে রাখার মাধ্যমে বিশ্বের খুবই জনপ্রিয় একটি Social platform হিসেবে স্বীকৃত।

আপনি যদি Twitter Marketing প্রোপারলি করতে পারেন, তবে যে কোন বিষয়ের মার্কেটিংয়ে আপনি খুব ভালো ফলাফল পাবেন।

টুইটার মার্কেটিং নিয়ে বিস্তারিত আর্টিকেল প্রকাশ করার ইচ্ছে আছে।

ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং

Instagram খুবই জনপ্রিয় একটি সোশ্যাল মিডিয়া।

এই সোশ্যাল মিডিয়াটি বর্তমানে Meta কোম্পানি দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে।

অর্থাৎ ফেসবুক যেই কোম্পানির, Instagram সেই কোম্পানিরই একটি সেবা।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর Instagram খুবই জনপ্রিয়।

আমাদের দেশেও অনেক ডিজিটাল মার্কেটার আছেন, যারা Instagram Marketing করেন।

Instagram প্লাটফর্মে প্রতি মাসে প্রায় 6.8 billion visitors কানেক্টেড রয়েছে।

তাই এই সোশ্যাল প্লাটফর্মটিকে মার্কেটিং করার জন্য ব্যবহার করা সময়োপযোগী প্রদক্ষেপ বলা যায়।

ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং নিয়ে আমি অন্য একটি আর্টিকেলে বিস্তারিত বলতে চেষ্টা করবো ইনশাআল্লাহ।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করে আয়

অনেকেই প্রশ্ন করেন, Social media marketing করে কত টাকা আয় করা যায়।

এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে নির্দিষ্ট করে টাকার সংখ্যা উল্লেখ করার যুক্তিযোগ্য মনে করি না।

তবে আপনি যদি গুরুত্বের সাথে প্রোপারলি সোশ্যাল মিডিয়া বিপণন বা মার্কেটিং করতে পারেন, তবে আশা করা যায় প্রতি মাসে ভালো অংকের একটি একাউন্ট আপনি ইন্টারনেট থেকে আয় করতে পারবেন।

ধারণা দেওয়ার জন্য যদি বলি, আমাদের দেশেই এমন অগণিত ডিজিটাল মার্কেটার আছেন, যারা সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে মাসে হাজার হাজার আয় করছেন।

ব্যপারটি অদ্ভুত মনে হলেও এটাই সত্য।

আপনি-আমি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে জীবনের প্রায় অনেক সময় অযথায় ব্যয় করি। তবে সবাই যে অযথায় ব্যয় করে তা কিন্তু নয়।

আমিও মূলত গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ করি। তবে পেশা হিসেবে আরো বিভিন্ন বিষয় রয়েছে।

আমি আমার কাঙ্খিত কাজ বা সার্ভিসের গ্রাহক পাওয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া এবং এসইও মার্কেটিংকে ব্যবহার করি।

এতে আমি যথেস্ট উপকৃত হচ্ছি আলহামদুলিল্লাহ।

আপনারা যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক সময় দেন, তবে চেষ্টা করবেন যে সোশ্যাল মিডিয়ার অপকারিতা যেন আপনাকে গ্রাস না করতে পারে।

গুরুত্বপূর্ণ শেষ কথাঃ

হোয়াট ইস সোশ্যাল মিডিয়া? এই প্রশ্নের উত্তর এখন প্রায় সকলেই জানেন। এমনকি অনেকেই আছেন, যারা সোশ্যাল মিডিয়ার ব্যবহার আমার চেয়েও অনেক ভালো জানেন।

আবার অগণিত মানুষ আছেন যারা সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং সম্পর্কে এখনও তেমন জানেন না। তারা যদি এই আর্টিকেলটি পুরো পড়ে থাকেন তবে আশা করা যায় আপনি Social media marketing এর একটি পূর্ণাঙ্গ ধারণা পেয়েছেন।

মনে রাখবেন, সোশ্যাল মিডিয়ার অপব্যবহার ঠেকাতে পারলে সোশ্যাল মিডিয়ার অপকারিতা রয়েছে।

আপনার ক্যারিয়ার লাইফে সোশ্যাল মিডিয়া অনেক বড় একটি সাপোর্ট দেবে, যদি আপনি সোশ্যাল মিডিয়ার সুবিধা গুলো বুঝে কাজ করতে পারেন।

বিষয়টা এমন যে, আপনি চাইলে সোশ্যাল মিডিয়াকে আনন্দের জন্যও নিতে পারেন, আবার চাইলে ক্যারিয়ার গঠনের জন্যও নিতে পারেন। এটি সম্পূর্ণ আপনার দায়িত্বে।

যে কোন সোশ্যাল মিডিয়াতেই বাণিজ্যিক ব্যবহার রয়েছে।

বিভিন্ন ফিচার সমৃদ্ধ বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য উপরোল্লিখিত সোশ্যাল মিডিয়া গুলোকে টার্গেক করতে পারেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার যদি ইচ্ছে থাকে তবে এই প্লাটফর্ম গুলোই আপনাকে সবচেয়ে বেশী অপর্চুনিটি দেয়।

NAZIRUL ISLAM NAKIB

যত জ্ঞান-ধন করেছি অর্জন জীবনের প্রয়োজনে,
তার সবটুকুই বিলাতে চাই সৃষ্টির কল্যাণে।

Add comment

error: Content is protected !!