Off Page SEO Backlink

Off Page SEO ব্যাকলিংক ও Link Popularity | অফ পেজ এসইও

On Page SEO তে যতই ভালো করেননা কেন, Off Page SEO ছাড়া ওয়েবসাইটে র‌্যাঙ্ক করা খুবই দুর্লভ একটি বিষয়। সার্চ ইঞ্জিনের রেজাল্ট পেজে ওয়েবসাইটকে র‌্যাঙ্ক করাতে Off Page SEO এর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।  সকল এসইও এক্সপার্টরাই এই বিষয়ে একমত এবং সার্চ গুলোও এটাকে তাদের র‌্যাঙ্কিং ফ্যাক্টরে যুক্ত করে নিয়েছে।

অফ পেজ এসইও (Off Page SEO) এমন একটি বিষয়, যেটার মাধ্যমে ওয়েবপেজ র‌্যাঙ্ক করে। এইসইও টিউটোরিয়াল -এর আজকের পর্বে আমরা অফ পেজ এসইও ব্যাকলিংক এবং লিংক পপুলারিটি (Off Page SEO Backlink & Link Popularity ) সম্পর্কে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ।

Off Page SEO Backlink এর জন্য ১০ টি কৌশলগত টিপস্

অফ পেজ এসইওএকটি ওয়েবসাইটকে পূর্ণাঙ্গ এসইও করার জন্য নিচে দেওয়া প্রতিটা অধ্যায়কে গুরুত্বের সাথে দেখতে হয়। তবেই এসইও এর প্রচলিত স্টেপটি পূরণ হয়। এই স্টেগুলো ফলো করেই অগণিত এসইও অপটিমাইজার তাদের প্রতিটা এসইওর প্রজেক্ট সম্পূর্ণ করে থাকে।

(১) সোশ্যাল বুক মার্কিং ( Social Bookmarking)

(২) সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং (Social Networking )

(৩)  রিয়েলি সিম্পল সিন্ডিকেশন (Rss / Really Simple Syndication)

(৪) ফোরাম পোস্টিং (Forum Posting)

(৫) আর্টিকেল ডিরেক্টরি (Article Directory)

(৬) ওয়েব 2.0 লিংক বিল্ডআপ (Web 2.0 Link Buildup)

(৭) প্রেস রিলিজ (Press Release)

(৮) ভিডিও (Video)

(৯) ডিরেক্টরি সাবমিশন (Directory Submission)

(১০) পডকাস্ট ইটিসি (Podcast etc.)

Link Popularity | লিংক পপুলারিটি

লিংক পপুলারিটি (Link Popularity) বলতে আপনার সাইটের মোট কতগুলো ব্যাকলিংক আছে? ব্যাকলিংক গুলোর অথরিটি কেমন? কোন ধরণের সাইট থেকে ব্যাকলিংক পেয়েছেন? এই সমস্ত বিষয়কেই লিংক পপুলারিটি বলে। এসইওতে (SEO) তে লিংক পপুলারিটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

Link Popularity কেন গুরুত্বপূর্ণ?

সকলেই জানেন, On Page SEO কেবলমাত্র একজন ওয়েবমাস্টারই মেইন্টেন্ট করতে পারে। তাই ওয়েবমাস্টার চাইলে তার ওয়েবসাইটে যে কোন ইনফরমেশন দিয়ে কন্টেন্ট পাবলিশ করতে পারে। সেই কন্টেন্টে ফেক ( Fake Information) ইনফরমেশনও থাকতে পারে। আর এই সমস্ত কাজকে ঠেকাতে সার্চ ইঞ্জিনগুলো লিংক পপুলারিটিকে (Link Popularity) খুবই গুরুত্ব দেয়।

লিংক পপুলারিটি (Link Popularity) মূলত আপনার সাইটের দর্শকদের ইনগেজমেন্টের উপর ভিত্তি করে নির্মিত হয়। আপনার দর্শকেরা তখনই আপনার সাইটের একটি লিংক শেয়ার করতে আগ্রহী হবে, যখন সত্যিকার অর্থে আপনার কন্টেন্ট পড়ে সে উপকৃত হয়। এই ধরণের লিংক শেয়ারিংকে কেন্দ্র করেই সার্চ ইঞ্জিনগুলো কন্টেন্টকে প্রাধান্য দিতে শুরু করে।

যেই ওয়েবপেজের লিংক পপুলারিটি (Link Popularity) বেশী হয়, সেই ওয়েব পেজের র‌্যাঙ্ক অটোমেটিক বেড়ে যায়। আর ওয়েবপেজে লিংক পুপলারিটি থাকলে সার্চ ইঞ্জিনগুলোও তাদের সার্চ কুয়েরির রেজাল্ট পেজে র‌্যাঙ্ক বৃদ্ধি করে দেয়। এভাবেই মূলত একটি ওয়েবসাইট SEO তে এগিয়ে যায় এবং প্রচুর পরিমাণে অর্গানিক ভিজিটর পায়।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

উপরোল্লেখিত প্রত্যেকটা বিষয়ই ‘সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনের’ সাথে সম্পৃক্ত। ওয়েবসাইটকে সার্চ ইঞ্জিন কুয়েরির রেজাল্ট পেজে র‌্যাঙ্ক করাতে হলে এই বিষয়গুলো মানতে হবে। আপনি যদি এই বিষয়গুলো সঠিকভাবে ট্রাই করেন, তবে আশাকরি আপনি নিজেকে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশনে দক্ষ বলে প্রমাণ করতে পারবেন।

2 comments

  • ভাই আপনি কি লোকাল কোনো সাইট এসইও করেন? দয়াকরে জানাবেন😍