Website page speed চেক করার জনপ্রিয় ৩টি ফ্রি টুলস্

Website page speed চেক করার জনপ্রিয় ৩টি ফ্রি টুলস্ | SEO Tricks

Website page speed : ওয়েবসাইট টিকিয়ে রাখার জন্য ভিজিটর ধরে রাখা অত্যাবশ্যক! আর ভিজিটর পেতে হলে এসইও (SEO) -এর গুরুত্ব অপরসীম। এসইওর শর্তগুলো পূরণ করতে পারলে ওয়েবসাইট উন্নতির দিকেই এগিয়ে যাবে, এটা বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে মজার বিষয় হলো, আমাদের অনেকেই স্লো হোস্টিং (Slow Hosting) নিয়ে গুগল সার্চ কোয়েরির রেজাল্ট পেজে ওয়েবসাইট র‌্যাঙ্কিং করাতে চাই। অথচ, সার্চ ইঞ্জিনের কোয়েরির রেজাল্টে আসতে হলে এসইওর রিকোমেন্ডেশন পূরণ করতেই হবে, এটা জানা সত্ত্বেও তা করা হয় না।

সার্চ ইঞ্জিনের রেজাল্টে (SEO তে) ভালো ফলাফল পেতে হলে দ্রুততম হোস্টিং প্যাকেজ সবসময় রিকমেন্ডেড। যাদের হোস্টিং স্লো হয়, তাদের ওয়েবপেজ গুলো খুবই সময় নিয়ে লোড হয়। ফলে ভিজিটরেরা বিরক্ত হয়ে ওয়েবপেজে প্রবেশ করতে চায় না। এভাবে প্রতিনিয়তই ভিজিটর হারাতে হয়। আর যাদের হোস্টিং কোয়ালিটি পূর্ণ থাকে, সেই হোস্টিংয়ে হোস্ট করা ওয়েবপেজ গুলো দ্রততম লোড হয়। এসব ওয়েবসাইটের প্রতি ভিজিটরদের আলাদা একটি নজর থাকে এবং সার্চ ইঞ্জিনের কোয়েরিতেও ভালো পারফর্ম করে।

ওয়েবসাইটকে র‌্যাঙ্কিং করাতে হলে নিয়মিত পেজ স্পিড চেক করুন

Website page speedআপনার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করার জন্য একজন ভিজিটর লোডিং স্পিড সমস্যায় মিনিটের পর মিনিট বসে থাকবে না। আপনার ওয়েবসাইট বাদ দিয়ে তারা অন্য কোনো ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে চেষ্ট করবে। যদি অন্য ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড ভালো দেখতে পায়, তবে সেই ওয়েবসাইটে চলে যাবে। আবার যদি সেই ওয়েবসাইট গুলোতে কাঙ্খিত তথ্যের সন্ধান পায়, তবে আর আপনার সাইটে কখনই প্রবেশ করবে না।

ভিজিটরের প্রথম অনুভূতিটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। তাই একজন ওয়েবমাস্টার হিসেবে কাঙ্খিত সাফল্য অর্জন করতে হলে ওয়েবসাইটের পেজ স্পিডের প্রতি লক্ষ্য রাখা প্রয়োজন। যেই ওয়েবপেজ গুলো ৩-৪ সেকেন্ডের ভেতরেই লোড হয়, সেই ওয়েবসাইট গুলো সর্বক্ষেত্রেই এগিয়ে থাকে। এমন ওয়েবসাইট গুলো সার্চ রেজাল্টেও ভালো ফলাফল প্রদর্শন করে। আবার ভিজিটরও বেশি পাওয়া যায়।

Website page speed চেক করার জনপ্রিয় ৩টি ফ্রি টুলস্

1 | google pages peed insights. এটি মূলত গুগলের নিজস্ব সেবা। এই Tools টি ওয়েবসাইটের স্পিড চেক করার জন্য খুবই জনপ্রিয়। এটার সাহায্যে আপনি দুইটি ডিভাইসের স্পিড তথ্য দেখতে পারবেন। অর্থাৎ, কম্পিউটার ও স্মার্টফোন থেকে আপনার ওয়েবসাইট স্পিড কেমন। দুইটা আলাদা আলাদা ভাবে দেখানো হবে।

গুগল পেজ স্পিড

2 | GTmetrix. ওয়েবসাইটের স্পিড টেস্ট করার সবচেয়ে জনপ্রিয় টুলস বা ওয়েবসাইট। এই ওয়েসাইটের সাহায্যে নিয়মিত লক্ষ লক্ষ ওয়েবমাস্টার তাদের ওয়েবসাইটের স্পিড টেস্ট করে থাকে। এটাতে খুবই সুন্দর করে তথ্য প্রদর্শন করে।

page speed checker bangla

3 | Pingdom Website Speed Test. ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড টেস্ট করার আরেকটি জনপ্রিয় টুলস্ বা ওয়েবসাইট। এই ওয়েবসাইটিও খুবই ভালো। এটাতে সার্ভার এরিয়া যুক্ত করে তারপর ওয়েবসাইটের স্পিড টেস্ট করা যায়।

pingdom website speed test bangla

যেই ৩টি টুলস্ বা ওয়েবসাইটের রিভিউ করলাম সবগুলোই সম্পূর্ণ ফ্রি। ওয়েবসাইটের স্পিড টেস্ট করার জন্য এই ৩টি ওয়েবসাইটই সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয়। আপনি চাইলে এই ৩টি ওয়েবসাইটরে সাহায্যে আপনার ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড চেক করতে পারবেন। এতে করে পরবর্তী পদক্ষেপ বা আপনার সাইটের পেজ স্পিড উন্নত করতে সহায়ক হবে।

ওয়েবসাইট স্পিডআপ করার ছোট্ট ৪টি টিপস

১ | আপনার ওয়েবসাইটের জন্য কোয়ালিটিপূর্ণ হোস্টিং ব্যবহার করুন।

২ | ওয়েবসাইটের সমস্ত কন্টেন্টকে ভালোভাবে অপটিমাইজ করুন। বিশেষ করে ইমেজগুলো অপটিমাইজ করুন।

৩ | ওয়েবসাইটে ক্যাচিং প্লাগইন ব্যবহার করুন।

৪ | ওয়েবসাইটকে CDN সার্ভারের সাথে যুক্ত করুন।

ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড যত ভালো হবে, গুগল র‌্যাঙ্কিং বা এসইওতে ততই ভালো পারফর্ম করবে।

গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথাঃ

আমরা সকলেই জানি, ওয়েবসাইটের প্রধান উদ্দেশ্যই হলো কাঙ্খিত সেবা ভিজিটরদের কাছে পৌঁছে দেওয়া। একজন ভিজিটর প্রথম প্রবেশেই একটি ওয়েবসাইটের যে বিষয়টি লক্ষ্য করে তা হলো ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড। একজন ওয়েবমাস্টার তখনই সফল, যখন তার ওয়েবসাইটে একজন পুরাতন ভিজিটর বারবার প্রবেশ করে। একটি ওয়েবসাইটে যতই ভালো ভালো কন্টেন্ট পাবলিশ করা হোক না কেন, ওয়েবসাইটের পেজ স্পিড যদি ভালো না থাকে, তবে ভিজিটির ধরে রাখা সম্ভব নয়।

আশাকরি Website page speed চেক করার জনপ্রিয় ৩টি ফ্রি টুলস্ সম্পর্কে  বুঝতে পেরেছেন। পরবর্তী আর্টিকেলে ‘কিভাবে ওয়েবসাটের পেজ স্পিড ফ্রিতেই বাড়ানো যায়’ এই বিষয়ে আলোচনা হবে ইনশাআল্লাহ।

=======>> এই বিষয়ে কারো কোনো প্রশ্ন বা মতামত থাকলে কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ।

2 comments