ডোমেইন ও হোস্টিং

ডোমেইন ও হোস্টিং কেনার আগে আপনাকে যা জানতে হবে

যে কোনো ধরণের ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্যই ডোমেইন এবং হোস্টিংয়ের প্রয়োজন হয়। আমাদের এই ওয়েবসাইটটিও ডোমেইন ও হোস্টিং দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে। আমাদের মাঝে অনেকেই আছে সস্তা দামের ডোমেইন হোস্টিং খুঁজি। আবার অনেকেই ফেসবুকে বা কোথাও এড দেখে বিভিন্ন কোম্পানি থেকে সস্তায় ডোমেইন হোস্টিং কিনে ওয়েবসাইট তৈরি করছি বা ইতোমধ্যেই করে ফেলেছি। কিন্তু ভাবার বিষয় হলো, সস্তা দামের ডোমেইন হোস্টিং কিনে ওয়েবসাইট তৈরি করে কি আমরা আদৌ লাভবান হচ্ছি নাকি ঠকে যাচ্ছি? আসলে সস্তা দামের পেছনে ছুটা কতটুকু যুক্তিযোগ্য?

ডোমেইন এবং হোস্টিং কি?

আমি প্রায় মানুষকেই দেখেছি, তারা সস্তা দামের ডোমেইন হোস্টিং খুঁজে। আমিও না জানার কারণে একসময় তাই করলাম। কিন্তু বেশীরভাগ মানুষই জানেনা, সস্তা দামের ডোমেইন হোস্টিং দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করে যে আমরা নিজেরাই ঠকে যাচ্ছি।

আমার একটি অভিজ্ঞতার কথা শুনুন

আমার নিজের একটি অভিজ্ঞতা শেয়ার করি, তবে আশাকরি আপনারা সহজেই বুঝতে পারবেন। আমি প্রায় ২০১৩ সাল ওয়েব জগতে কাজ করি। দীর্ঘ এই পথচলায় ডোমেইন -হোস্টিং নিয়ে অনেকটা অভিজ্ঞতা হয়েছে। এই অভিজ্ঞাতায় আমি অনেক মানুষকে দেখেছি, ২/৩ বছর একাধারে একটি ওয়েবসাইটে কাজ করার পর তাদের ডোমেইন হোস্টিং কোম্পানি হঠাৎ উধাও হয়ে গেছে।

যিনি সাধারণ ইউজার তার কি হলো? তার একটি বড় স্বপ্ন মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে গেলো। দিন-রাত পরিশ্রমের ফসলটা সে আর উপভোগ করতে পারলো না। কারণ কি? ডোমেইন হোস্টিংয়ের কন্ট্রোল প্যানেল তো কোম্পানির ওয়েবসাইট দ্বারাই পরিচালিত হতো। কোম্পানি উধাও হয়ে যাওয়ার পর নেইম সার্ভার বন্ধ হয়ে যায়। ফলে ডোমেইন হোস্টিংয়ের কন্ট্রোল প্যানেলে এক্সেস করা গেলো না। এর কারণে নিজের স্বপ্নে গড়া ডোমেইনটি হারাতে হলো। এমন একটি বিষয় আমার সাথেও ঘটেছিল। যাইহোক, ওদিকে আর যেতে চাইনা।

ডোমেইন কেনার আগে

ডোমেইন কেনার আগে আপনাকে সবচেয়ে বেশী ভাবতে হবে। ডোমেইনটাই হলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। ওয়েবসাইটে কাজ করার সময় যত ফসল ফলাবেন সবই ডোমেইনের মাঝে এড হবে। তাই ডোমেইনটা অবশ্যই ট্রাস্টেড কোন ভালো কোম্পানি থেকে কিনবেন। যেই কোম্পানি গুলো কখনই ভেগে যাওয়ার চান্স নেই তাদের থেকেই ডোমেইন নেওয়া উচিত।

ভালো কোম্পানি থেকে ডোমেইন ক্রয় করলে ডোমেইন ফিচারে বেশকিছু এডন যুক্ত থাকে, যা আপনার ডোমেইনকে সুরক্ষিত রাখতে আলাদাভাবে সাপোর্ট দেয়। তবে যে ফিচার গুলো সহ ডোমেইন কেনা উচিত : Domain DNS, Domain Privacy Protection, SSL Certificate  ইত্যাদি। ভালো কোম্পানি থেকে ডোমেইন কিনলে এগুলো অবশ্যই থাকবে। তবে হ্যাঁ, অনেক কোম্পানি ডোমেইনের সাথে ফ্রিতেই দেয় আবার অনেক কোম্পানি থেকে আলাদাভাবে কিনে নিতে হয়।

হোস্টিং কেনার আগে

হোস্টিং হলো ওয়েবসাইটের একমাত্র স্টরিজ। এই স্টরিজ থেকেই ওয়েবসাইটের সকল ডেটা পরিবেশন করা হয়। সস্তা হোস্টিং সবসময় স্লো হয় এবং বেশীরভাগ সময় ডাউনটাইমে চলে যায়। আপনার ওয়েবসাইটের কন্টেন্ট কোয়ালিটি যতই ভালো থাকুক, ভিজিটর ধরে রাখার জন্য কোয়ালিটি হোস্টিং আপনার প্রয়োজন হবেই। হোস্টিং ভালো মানের হলে ওয়েবসাইটের পেজ দ্রুতই লোডিং হয়। যেই সাইটগুলো যত দ্রুত লোডিং হবে সেই সাইটে ভিজিটর বেশী প্রবেশ করার চান্স রয়েছে। ভিজিটর কখনই চায় না মিনিটের পর মিনিট পেজ লোডিং হওয়ার আশায় বসে থাকতে।

তাছাড়া এসইওতে সার্চ ইঞ্জিনগুলোর রেজাল্ট পেজে আসতে হলে হোস্টিং কোয়ালিটির বিকল্প নেই। কন্টেন্ট কোয়ালিটির পর ফাস্ট লোড হওয়া সাইটগুলো গুগল রেংকিংয়ে এগিয়ে থাকে। ঠিক তেমনীভাবে যে সাইটগুলোর হোস্টিং স্লো হয়, সেগুলোকে রেংকিংয়ে পিছিয়ে দেওয়া হয়। এটাই সমস্ত সার্চ ইঞ্জিনের একটি নীতি।

সবচেয়ে ভয়ানক একটি বিষয় হলো, সস্তা ডোমেইন হোস্টিং নেওয়ার কারণে আমাদের অনেক প্রাইভেসি নিজেরদের অজান্তেই লিক হয়ে যায়। কমদামী হোস্টিং কোম্পানিগুলো আমাদের অজান্তেই হোস্টিং সার্ভারে প্রবেশ করে বিভিন্ন তথ্য হাতিয়ে নেয়! যেমন: প্রিমিয়াম থিম, প্রিমিয়াম প্লাগইন, কাস্টোম টেমপ্লেট ইত্যাদি। এগুলো ছাড়াও বিভিন্ন সময় তারা নিজেরাই সার্ভারে সমস্যা তৈরি করে ইউজারদের থেকে বাড়তি টাকা হাতিয়ে নেয়।

আরেকটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, তারা কখনই আপনার ডোমেইনের ১০০% কন্ট্রোল প্যানেল আপনাকে দেবে না। তাদের পসিলিসিটাই যেন এমন। তাদের থেকে ক্রয় করা ডোমেইনটা নিয়ে আপনি যতই কাজ করুন, প্রকৃতপক্ষে সেই ডোমেইনটার মালিক আপনি নন! বিষয়টা কত ভয়াবহ বুঝতে পারছেন? এমনও হয়, আপনার কষ্টের ডোমেইনটা যদি ভালো রেংক করে, তবে তারা সেটাকে ভালো দামে অন্য কারো কাছে বিক্রি করে দেয়।

মোটকথাঃ

সস্তা অফারে অচেনা কোম্পানি থেকে কোনকিছুই ক্রয় করা ঠিক না। যে কোন কিছু ক্রয় করার আগে কোম্পানি সম্পর্কে সুষ্পষ্ট ধারণা রাখা জরুরি। যাইহোক, ডোমেইন ও হোস্টিং কেনার আগে আপনাকে যা জানতে হবে, এই বিষয়ে সুস্পষ্ট একটি ধারণা দিলাম। এখন সিদ্ধান্ত অবশ্যই আপনার।

Add comment